HSC examination can be done in corona

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে আলোচিত বিষষ প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস । বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ীয়েছে ১৪ জনে । এর মধ্যে গতকাল ১৮ মার্চ একজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। ফলে সকলের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে আগামী ১ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়ার কথা ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষা

ফলে আতঙ্কে রয়েছে শিক্ষার্থী-অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্টরা। কেউ কেউ এইচএসসি পরীক্ষা পেছানোর দাবি করছেন। তবে ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি পরীক্ষা হবে কি না তা এখনই নিশ্চিত বলতে পারছে না কেউ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Join our Facebook Group Get job update & discuss about Job related Topics.

Like Our Page&Facebook Group

তবে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম ও সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যাচ্ছে এখন যে পরিস্থিতি রয়েছে তা চলমান থাকলে এইচএসসি পরীক্ষা কিছুদিন পেছানো হতে পারে। তবে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি উন্নতির দিকে গেলে পেছানো হবে না এইচএসসি পরীক্ষা।

২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষা পেছানো হলে এবং নতুন সময়সূচী প্রকাশ করা হলে লেখাপড়াবিডি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে তা জানতে পারবেন।

 HSC examination can be done in corona

প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস বিশ্বের অন্তত ১৭০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এর সংক্রমণ ও বিস্তাররোধে আগামী ১ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পেছানো হতে পারে। বুধবার প্রথমবারের মতো দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তি মারা যাওয়ার পর সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা আয়োজন করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় গঠিত জাতীয় আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা স্থগিত করেছে।

আন্তঃশিক্ষাবোর্ড ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গণমাধ্যমকে বলেন, এইচএসসি পরীক্ষার আইনশৃঙ্খলা কমিটির বৈঠক স্থগিত হয়েছে, তবে পরীক্ষা পেছানোর ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে, পরীক্ষা পেছানো হবে কিনা তা আরও এক সপ্তাহ পর পরিস্থিতির ওপর বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে করোনাভাইরাস আতঙ্কে পরীক্ষা আয়োজনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে বলে তিনি জানান।

এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে এরআগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছিলেন, আমরা এখনই এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি। কাছাকাছি সময়ে গিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে তখন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও শিক্ষার্থীদের নিরাপদ দূরত্বে রাখতে এক বেঞ্চ পর পর সিট প্ল্যান করা হবে বলে তিনি জানান। উল্লেখ্য, বর্তমানে চীনের ৩০টি প্রদেশের পাশাপাশি বিশ্বের অন্তত ১৭০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস। সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী বিশ্বের অন্তত দুই লাখ ১৯ হাজার ৩৫০ মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন যাদের মধ্যে ৮৫ হাজার ৭৪৫ জন সুস্থ হয়ে হাসাপাতাল ত্যাগ করেছেন। মৃত্যু হয়েছে ৮ হাজার ৯৭৯ জনের।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক