Three years younger children in memory of the Quran

কুরআন মহান আল্লাহ নিজেই মানুষের হৃদয়ে সংরক্ষণ করেছেন। যা ইচ্ছা করলেও কেউ হৃদয় থেকে মুছে দিতে পারবে না।

যার প্রমাণ আজারবাইজানের ৩ বছরের ফুটফুটে জাহরা। এ বয়সেই সে মুখস্থ করেছে পবিত্র কুরআন।

Join our Facebook Group Get job update & discuss about Job related Topics.

Like Our Page&Facebook Group

বয়স মাত্র তিন বছর। এই বয়সেই মুখস্ত পবিত্র কুরআন। এই ঘটনায় আজারবাইজানের এক শিশু আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

ঘটনার বিস্তারিত সম্পর্কে জানা যায়, তিন বছর বয়সী ওই শিশুর নাম জাহরা। এ বয়সেই সে মুখস্থ করেছে পবিত্র কুরআন।

সেইসঙ্গে দেশটির সবচেয়ে কনিষ্ঠ হাফেজ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে সে। ওই শিশুর এমন দক্ষতা বিশ্বব্যাপী প্রশংসা পেয়েছে।

 

Three years younger children in memory of the Quran

Three years younger children in memory of the Quran

 

জাহরা হোসাইন। বয়স মাত্র ৩ বছর। এ বয়সে কুরআন মুখস্থ করে সারা বিশ্বকে অবাক করে দিয়েছে সে।

আর তাতেই সে দেশটির সবচেয়ে কনিষ্ঠ হাফেজ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

ওই শিশুর মা জানান, জাহারা গর্ভে থাকা অবস্থায় বেশি করে কুরআন তেলাওয়াত করতেন।

এছাড়া উচ্চস্বরের কুরআনের তেলাওয়াত মনোযোগ সহকারে শুনতেন।

তিনি আরো জানান, জাহরার জন্মের পর ছড়া কিংবা কবিতার পরিবর্তে জাহরাকে ঘুম পাড়াতে কুরআনের ছোট ছোট সুরাগুলো তেলাওয়াত করতেন।

জাহারার মা জানান, তার মেয়ের বয়স যখন ১ বছর তখন থেকেই জাহরা তেলাওয়াত করা ছোট ছোট সুরাগুলো তার সঙ্গে তেলাওয়াতের চেষ্টা করছে।

মেয়ের এমন আগ্রহ দেখে কুরআন তেলাওয়াত বাড়িয়ে দেন তিনি।

এভাবেই ৩ বছর বয়সে মায়ের কাছ থেকে শুনে শুনে জাহরা পবিত্র কুরআনের ৩৭টি সুরা মুখস্থ করে ফেলেছে।

আল্লাহ তাআলা ৩ বছরের ছোট্ট জাহরা হোসাইনকে কুরআনের পাখি হিসেবে কবুল করুন।